বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতা, তাসনিম আক্তার কাব্য, ৮ম শ্রেণি, কুড়িগ্রাম সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়

মেরুন-ধূসর বধ্যভূমি,
মাঠ-ফসল আর শস্যভূমি ।
কী-যে অপরূপ সৌন্দর্য সে-তার!
তাই তো হানা দিয়েছিলো তারা বারবার ।
মন ভোলানো সৌন্দর্য শেষে,
রক্তে ভেজালো দস্যু এসে!
শয়তান! পাপিদের দল,
কেন করলি নষ্ট,সোনার ফসল?
অনেক সয়েছি অত্যাচার,
মেনে নিয়েছি ব্যাভিচার,মুখ বুজে ।
আর থাকবো না যৌথ দেশে ।
কেন থাকব বন্দি বেশে ?
যখন সেই ১৯৪৭ সালেই দেশ ভাগ হয়েছে!
একের পর এক আন্দোলন,
নতুন আইনের চাই সংশোধন।
মুক্ত হোক,বঙ্গবন্ধুর কারাবন্ধন।

নামল ছাত্র,নামল শ্রমিক,
নামল সবাই রাজপথে ।
সবার একটাই কথা বুকের মাঝে-
আমরা আছি বঙ্গবন্ধুর সাথে ।
স্বীয় রক্তে ভেজালো আকাশ,
ভেজালো পাতাল,ভেজালো মাটি।
তবুও মেনে নিল না তারা
বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতার দাবিটি।

এমনিভাবে চলল ক’দিন,
কবে হবে বাংলাদেশ স্বাধীন ?
সেদিন ছিল ২৫ শে মার্চ নাইট,
শুরু হলো পাকিস্তানিদের অপারেশন সার্চলাইট ।
সে কী নৃশংস!
ইতোমধ্যে সবকিছু তারা
করে দিয়েছে ধ্বংস ।
পরদিন,রাত ১২ টা ৩৬ মিনিট
২৬ শে মার্চ, ১৯৭১ সাল ।
বঙ্গবন্ধু দিলেন স্বাধীনতার ডাক,
পরিস্থিতি ভীষণ উত্তাল ।
শুরু হলো-সেই মহান মুক্তিযুদ্ধ ।
যার অপেক্ষায় ছিল, জনগন স্বতঃফূর্ত ।
লক্ষ শহীদের রক্তে ভেজা,
ছেলে হারানো মায়ের অশ্রু ।
সবার আগে এদেশ আমার,
এ ভয়েতেই তো, পালালো শত্রু!
তবে এখন?
স্বাধীন কী হয়েছিলো দেশ ?
না, হয়নি ।
এত মানুষকে মেরেও,
তাদের শান্তি হয়নি ।
তবুও মারল নির্বিচারে,
বঙ্গবন্ধুকে স্ব-পরিবারে ।
তবে কী শেষ হয়েছিলো,
সেই মহান নেতার স্বপ্নগুলো!
হেরে কী গিয়েছিলো সেদিন ?
শত মায়ের অশ্রু, লাখো বীরের ত্যাগগুলো !
না……..। এত কিছুর পরেও,
পূরন হয়নি সেদিন, শত্রুদের ষড়যন্ত্র গুলো ।
আল্লাহর দয়ায় বেঁচে ছিল দু’জন,
শেখ হাসিনা, তাদের ই একজন ।
তিনিও ভাবেন বাবার মতোন,
করেন দেশের উন্নয়ন ।
বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উত্তক্ষেপন,
তার এক বাস্তবমুখী উন্নয়ন ।
তার জন্যই,
বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের স্বাধীনতা-
মহাকাশে পৌঁছানোর এক
যুগান্তকারী বাস্তবতা ।
তাই, বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতা সংগ্রামের কথা,
কেউ কোনোদিন ভুলতে পারবে না ।

প্রতিভা খজার লক্ষে আজ পথে পথে....

One Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.